সিদ্ধিরগঞ্জে রেন্ট-এ কার স্ট্যান্ডের চাঁদাবাজী বন্ধের দাবীতে গাড়ীর মালিকদের বিক্ষোভ

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

স্টাফ রিপোর্টার আলোকিত শীতলক্ষ্যা : নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে রেন্ট-এ কার স্ট্যান্ডের চাঁদাবাজি বন্ধের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ভুক্তভোগী গাড়ীর মালিকরা। রবিবার (২২ ডিসেম্বর) সকাল ১০ টার দিকে শিমরাইল মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, শিমরাইল মোড়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দক্ষিণ পাশে সরকারি জায়গা দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে রেন্ট-এ কার স্ট্যান্ড। রেন্ট-এ কারের অধিনে এ স্ট্যান্ডে ২৭০ টি গাড়ি ভাড়ায় চলাচল করছে। যখন যে দল ক্ষমতায় আসে তখন সে দলের স্থানীয় নেতা ও সন্ত্রাসীরা নিয়ন্ত্রন করে এ স্ট্যান্ডের চাঁদাবাজি। বর্তমান মাহজোট ক্ষমতায় আসার পর চাঁদাবাজির নিয়ন্ত্রন নিয়ে কয়েক দফা মারামারি ও পাল্টা পাল্টি কমিটি গঠন হয়।

সর্বশেষ সিদ্ধিরগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক রাজু সভাপতি ও বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন আহমেদ সাধারণ সম্পাদক হয়ে একটি কমিটি গঠন করে চাঁদাবাজির নিয়ন্ত্রন নেয়। বিগত সময়ে গাড়িপ্রতি মাসিক চাঁদা আদায় করা হত ১ হাজার টাকা। নতুন কমিটি তিনশ টাকা বৃদ্ধি করে। চাঁদা বৃদ্ধি ও বিএনপি নেতাকে সাধারণ সম্পাদক করায় দেখা দেয় ক্ষোভ। গত ৬ মাস ধরে চাঁদার পরিমান বাড়িয়ে গাড়িপ্রতি আদায় করা হচ্ছে ১৮‘শ টাকা করে। যা মাসে দাঁড়ায় ৪ লাখ ৮৬ হাজার টাকা। এতে ফুঁসে উঠ গাড়ি মালিক ও চালকরা।

তাই রবিবার সকালে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে গাড়ি মালিক ও চালকরা। তখন থানা পুলিশ এসে চাঁদা বন্ধের আশ্বাস দিলে তারা শান্ত হয়।

গাড়ি মালিক, ইয়াছিন, জাকির ও আবদুল্লাহ ক্ষোভের সাথে জানান, শুধু কমিটির লোক পরিবর্তন হয়। চাঁদা বন্ধ হয়না। লোক নয় আমরা চাঁদা বন্ধ চাই।

এ বিষয়ে থানা আওয়ামীলীগ সভাপতি মজিবুর রহমান জানান, দুপক্ষই আমার কাছে এসেছিল। বুঝিয়েছি গন্ডগোল না করতে। নিষেধ করে দিয়েছি কোন চাঁদাবাজি চলবেনা।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি কামরুল ফারুক জানান, পুলিশ পাঠিয়েছি। গাড়ি মালিকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কোন চাঁদা না দিতে। যদি কেহ চাঁদা চায় তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

আলোকিত শীতলক্ষ্যা

পরিশ্রমকারীব্যক্তি কখনও ব্যর্থ হয়না এগিয়ে যাও সফল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.