সিদ্ধিরগঞ্জে ইজিবাইকে সামাজিক দূরত্বের বালাই নেই

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক আলোকিত শীতলক্ষ্যা : ‘ভয়ঙ্কর মহামারী করোনা ভাইরাস‘ প্রতিদিন আক্রান্ত বেড়েই চলছে, তেমন হচ্ছে মৃত্যু। হতে হবে সচেতন। আসা যাওয়া চলাফেরায় সামাজিক দূরত্ব নিয়ে করতে হবে। সিদ্ধিরগঞ্জের প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে এলাকার পাড়া-মহল্লায় আনাঁেচ-কানাঁচে দেখাগেছে ইজিবাইকগুলো চলাচলের ক্ষেত্রে যেমন মানছেনা সামাজিক দূরত্ব, তেমন তাদের গাড়ীচালানো হচ্ছে দূরন্ত গতিতে এক ইজিবাইক ড্রাইভার আরেক জনকে এমনভাবে তারা ওভারটেক করে নিয়ন্ত্রণ হারা পাগলের মতই। এমনভাবে তারা গাদাগাদি করে লোক নেয়, মানা হচ্ছে না তাদের সরকারী ঘোষনার মহামারী করোনার কোন নিয়ম। একজনে অন্যজনের সাথে গাড়ীতে ঘেঁষে বসা, মাস্ক-হ্যান্ডগ্লাভস ব্যবহার না করার সেই পুরনো চিত্র দেখা গেছে এই গণপরিবহনটিতে।

সিদ্ধিরগঞ্জ আদমজী টু চিটাগাং রোডের ইজিবাইক-অটোরিকশার দূরত্ব বজায় না রেখে চলাফেরা করছে বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশ অমান্য করে তারা চলাফেরা করছে এবং দূরত্ব বজায় না রেখে তারা, এই ডেঞ্জার জোন নারায়ণগঞ্জে। সিদ্ধিরগঞ্জ, আমদজী ইপিজেড গেইট, শিমরাইল মোড়, চৌধুরীবাড়ি, পাঠানটুলী, আইটি স্কুল মোড়, সিদ্ধিরগঞ্জ পুলসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। একইভাবে যাত্রী পরিবহন করছে ইজিবাইকগুলো। জীবণের ঝুঁকি নিয়ে। ঝুঁকিপূর্ণ গণপরিবহনের তালিকায় রয়েছে এ ইজিবাইক। তুলনামূলক ছোট আকারের এই গণপরিবহনটির মাত্রাতিরিক্ত গতিতে ছুটে চলা ও অপক্ক চালক দিয়ে গাড়ি চালানোর অভিযোগ রয়েছে।

করোনা ভাইরাসের কারনে সরকার সারাদেশের মত নারায়ণগঞ্জেও টানা ৬৭ দিন বন্ধ থাকার পর সরকারের পক্ষ থেকে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। দীর্ঘ ছুটির পর স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। তবে সে দূরত্ব মানা হচ্ছে না ইজিবাইক চালকরা। প্রতিটি ইজিবাইক চালকের পাশের আসনে বসছে দুইজন। পেছনে দিকে দুই পাশে ৩ জন করে মোট ৮ জন যাত্রী পরিবহন করা হয়। সামাজিক দূরত্ব মেনে যাত্রী পরিবহন করতে বলা হলে ২ জন যাত্রী নেওয়ার কথা। এতে প্রতি জনের মধ্যে এক ফুটেরও কম দূরত্ব থাকছে। আবার দুই পাশের যাত্রীরা বসছেন মুখোমুখি। ফলে স্বাস্থ্যবিধি বা সামাজিক দূরত্বের কিছুই মানা হচ্ছে না। আবার যাত্রীর মধ্যেও অসচেতনা বেশি।এ বিষয়ে সচেতন এলাকার/যাত্রীদের সাথে কথা হলে বলেন, ইজিবাইকটি এলাকায় চলাচল করার যাত্রী নেওয়ার কিছু নিয়ম করে একটু কঠোরতা হলে সকলেরই মঙ্গল কামনা। প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ, ইজিবাইক চালক ও মালিকদের সাথে বসে সমাধান করে হলেও যাতে চালকরা যাত্রী নিয়ে চলে চলুক সচেতনায় স্বাস্থ্যবিধি বা সামাজিক দূরত্বের মধ্যে। তাহলেই ড্রাইভার স্স্থু তার পরিবারও সুস্থ্য, আর যাত্রীও তার পরিবার সুস্থ। এই ইজিবাইক চালকরা যেভাবে যাত্রী উঠায় মানুষের জীবনের অনেক বড় ক্ষতি করছে।

এ বিষয় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক বলেন, ইজিবাইক হোক যে কোন গাড়ির ড্রাইভার হোক সবাইকেই সরকারী নিয়ম নির্দেশ মেনে চলতে হবে, এবং যাত্রীদের সচেতন ভাবে চলাফেরা করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, নিজে সচেতন হোন আপনার পরিবারকে সুস্থ্য রাখুন। এটাই প্রত্যাশা।

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

আলোকিত শীতলক্ষ্যা

পরিশ্রমকারীব্যক্তি কখনও ব্যর্থ হয়না এগিয়ে যাও সফল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Follow Us

Follow us on Facebook Us on Twitter On WhatsApp Us