মসজিদে বিস্ফোরণের মামলাটি সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বর দক্ষতা দিয়ে তদন্ত করা হবে : ডিআইজি মাঈনুল হাসান

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

আলোকিত শীতলক্ষ্যা রিপোর্ট : বাংলাদেশ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ডিআইজি মাঈনুল হাসান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনার দায়ের করা মামলাটি সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব এবং দক্ষতা দিয়ে দ্রুত তদন্ত শেষ করা হবে। তদন্ত কালে যাদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যাবে তাদেরকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে ৩১ জনের প্রাণহানি হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১ টায় পশ্চিম তল্লা বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে তিনি এইসব কথা বলেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তর সিআইডির ডিআইজি মাইনুল হাসান বলেন, গ্যাস পাইপ লাইনের লিকেজ থেকে এই বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এইখানে বিদ্যুৎতের বিষয় আছে, গ্যাসের বিষয় আছে, এইখানে যে মসজিদের স্থাপনাটি আছে সেটিও ঝুঁকিপূর্ণ। এই ঘটনায় যতগুলো সামগ্রিক বিষয় আছে সবগুলো আমরা খতিয়ে দেখবো, যাতে করে সব বিষয়গুলো তদন্তে উঠে আসে। এরপর তদন্ত অগ্রসর হলে মূল কারণ বুঝতে পারবো। তবে এ ঘটনায় গঠিত পাঁচটি সংস্থার তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পর্যবেক্ষণ করে সিআইডি চূড়ান্ত প্রতিবেদন তৈরি করবে। যারা যারা এই ঘটনায় দোষী প্রমানিত হবে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে দ্রুত প্রতিবেদন দাখিল করার কথাও জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, আমাদের চেষ্টা থাকবে দ্রুততার সাথে সামগ্রিক যে সাক্ষ্য-প্রমাণ আছে এইগুলো সংগ্রহ করে তদন্ত সম্পন্ন করা।

এইসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সিআইডির অতিরিক্ত ডিআইজি ইমাম হোসেন, নারায়ণগঞ্জে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) টিএম মোশাররফ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে এশার নামাজ চলাকালীন অবস্থায় তল্লা বায়তুস সালাত জামে মসজিদে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে ৷এখন পর্যন্ত ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে, ফতুল্লা থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলাটি সিআইডি তদন্ত করেছে। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস, তিতাস, ডিপিডিসি ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন থেকে গঠিত পৃথক পাঁচটি তদন্ত কমিটি তদন্ত অব্যাহত রেখেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

আলোকিত শীতলক্ষ্যা

পরিশ্রমকারীব্যক্তি কখনও ব্যর্থ হয়না এগিয়ে যাও সফল হবে।