বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বলেন আমরা জাতি হিসেবে গর্বিত

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

স্টাফ রিপোর্টার আলোকিত শীতলক্ষ্যা ডটকম : ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ, বাঙালি জাতির স্বাধীনতার সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের এক অনন্য দিন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্মরণে রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডির ৩২ নম্বরস্থ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর ও তার অনুগামী নেতা-কর্মীরা।

শনিবার ৭ই মার্চ সকালে সাবেক ছাত্রনেতা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য, নারায়ণগঞ্জ জেলা তাঁতীলীগ একাংশের সভাপতি, জাতীয় শ্রমিক লীগের অন্তর্ভূক্ত রেজিঃ নং বি-১৭৭৬ জাতীয় ডিজিটাল সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কমিটির সভাপতি জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর নেতৃত্বে তার অনুগামী নেতা-কর্মীরা রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডির ৩২ নম্বরস্থ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পাঞ্জলী অর্পণের মাধ্যমে এই মহান নেতাকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এসময় নারায়ণগঞ্জ জেলা তাঁতীলীগ একাংশের সহ-সভাপতি মোঃ মানিক মিয়া, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক নবীর হোসেন রবিন খানঁ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ফারুক হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক হৃদয় আহম্মেদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক রিপন মল্লিক, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মোঃ মিলন মাতবর ও কার্যনির্বাহী সদস্য আঃ মতিন, মোঃ হালিম, জাতীয় ডিজিটাল সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগের নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান প্রধান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আতাউর রহমান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ উজ্জল মিয়া, কার্যনির্বাহী সদস্য মোঃ আনোয়ার হোসেন ও মোঃ ফাহিম‘সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পার্পণ করেন।

এই বিশেষ দিন উপলক্ষ্যে জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী গণমাধ্যমকে দেয়া এক বিবৃতিতে জানান, প্রাণভরে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি বাঙ্গালীর মুক্তির স্বপ্নদ্রষ্টা, সর্বকালের সর্বশেষ্ঠ বাঙ্গালী, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চে বঙ্গবন্ধুর দেয়া ভাষণটিই ছিল বাঙ্গালীর স্বাধীনতার আন্দোলনের ঘোষণা। এই ভাষণটির মধ্যে আন্তর্জাতিক তাৎপর্য রয়েছে বিধায় ইউনেস্কো এই ভাষণটিকে ‘বিশ্ব প্রামান্য ঐতিহ্য’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। যার জন্য আমরা জাতি হিসেবে গর্বিত। ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে তার সেই ভাষণটি সেদিন শোনার জন্য সারা বাংলাদেশ থেকে লক্ষ-লক্ষ লোক তৎকালীন রেইসকোর্স ময়দানে জড়ো হয়েছিলেন। ঢাকার বাইরের অনেক জেলা থেকে মানুষ পায়ে হেটে সেদিনের সেই ভাষণ শুনতে এসেছিলেন।

জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বিবৃতিতে আরো বলেছেন, দেশের প্রতিটি মানুষকে আমি উক্ত ভাষণ শোনার আহবান জানাই, তাহলে সকলের জ্ঞানের পরিধি বাড়বে এবং স্বাধীনতাবোধ বাড়বে।

সর্বশেষে জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্য এবং সকল বীর শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

আলোকিত শীতলক্ষ্যা

পরিশ্রমকারীব্যক্তি কখনও ব্যর্থ হয়না এগিয়ে যাও সফল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.