খুনী মাজেদকে সোনারগাঁয়ে দাফন করায় তীব্র নিন্দা-জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী’র

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

রিপোর্টার আলোকিত শীতলক্ষ্যা : বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টা ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ তাঁর পরিবারবর্গের আত্মস্বীকৃত খুনী ক্যাপ্টেন মাজেদকে সোনারগাঁয়ের মাটিতে দাফন করে কলংকযুক্ত অধ্যায়ের সৃষ্টি করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা, বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য, নারায়ণগঞ্জ জেলা তাঁতী লীগ একাংশের সভাপতি, জাতীয় ডিজিটাল সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি জসীম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী।

গণমাধ্যমকে তিনি জানান, বাংলার প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী রাজধানী হিসেবে খ্যাত সোনারগাঁয়ের মাটিতে রাতের অন্ধকারে কার ইশারায় খুনী মাজেদের লাশ দাফন করা হলো তা আমাদের বোধগম্য নয়। এ ন্যাক্কারজনক ঘটনার বিরুদ্ধে আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তার জন্মস্থান ভোলাবাসী তাকে গ্রহণ করেনি, তাহলে আমরা কেন তাকে গ্রহণ করবো। কোন যুদ্ধাপরাধী বা বঙ্গবন্ধুর হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের স্থান এই বাংলার মাটিতে হতে পারেনা। আমরা এই কলংক মাথায় নিতে পারিনা। ক্যাপ্টেন মাজেদ শিশু শেখ রাসেলকে একটু পানি দেয়নি বরং ছোট শরীরটাকে গুলিবিদ্ধ করেছে। লাখো শহীদদের রক্তঝড়া ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার মাটিতে এই খুনী ও নরপিশাচদের ঠাই হতে পারেনা। নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অনুরোধ জানাবো, অনতিবিলম্বে খুনী মাজেদের লাশ অপসারণের মাধ্যমে সোনারগাঁয়ের মাটিকে কলংকমুক্ত করা হোক।

উল্লেখ্য, গোপনীয়ভাবে ১২ এপ্রিল রোববার ভোর ৪টায় সোনারগাঁও উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নে অবস্থিত হোসেনপুর এস পি ইউনিয়ন ডিগ্রী কলেজের পিছনে তার শশুরবাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে বঙ্গবন্ধুর খুনী মাজেদের লাশ দাফন করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

আলোকিত শীতলক্ষ্যা

পরিশ্রমকারীব্যক্তি কখনও ব্যর্থ হয়না এগিয়ে যাও সফল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.