আড়াইহাজারে দুই গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ,টেঁটা বিদ্ধ শিশুসহ আহত-১০

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

রিপোর্টার আলোকিত শীতলক্ষ্যা : নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে দুই গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনায় আহত হয়েছেন নারী ও শিশুসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১০জন।

সোমবার (৩০ মার্চ) দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার দুর্গম এলাকা স্থানীয় কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের রাধানগর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে শেখ ফরিদ (২৫), আলতাফ (২২), জুলি (২২) ও নাদিরা (১০)কে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যরা স্থানীয় বিভিন্ন সেবাকেন্দ্রে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এদের মধ্যে নাদিরা নামে এক শিশুর মাথায় টেঁটাবিদ্ধ হয়েছে এবং তার বোন জুলির মাথা ইটের আঘাতে থেঁতলে গেছে বলে জানা গেছে। তারা একই এলাকার জোহর আলীর মেয়ে। স্থানীয় তাজি মাতাব্বর ও ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইব্রাহিম গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় যুবক সুমন জানান, ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন রাধানগর এলাকায় লোকজনের মাঝে মাস্ক ও সাবানসহ বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করার দায়িত্ব দেন সাহা নামে এক যুবকসহ অন্যদের।

তিনি জানান, এ ঘটনায় ওয়ার্ড সদস্য ইব্রাহিমের লোকজনের সঙ্গে তাদের কথা-কাটাকাটির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে দুইপক্ষের লোকজনের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় এক পক্ষ অন্যপক্ষের ওপর হামলা চালায়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০জন আহত হয়েছেন।

স্থানীয় আসকর আলী নামে একব্যক্তি জানান, আমি বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে শুনেছি ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন ইউপি সদস্য ইব্রাহিমকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধমূলক সামগ্রী বিতরণের দায়িত্ব দিতে চাইলে তিনি তাতে অনীহা প্রকাশ করেছিলেন। পরে এগুলো তাজি মিয়ার ছেলে সাহাসহ অন্যদের বিতরণের দায়িত্ব দেয়া হয়। এতে ইব্রাহিমের লোকজনের সঙ্গে বাগবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। তিনি আরো বলেন, এ সময় জুলি নামে এক নারীর মাথায় ইটের আঘাতে থেঁলতে যায় এবং তার বোন নাদিরা টেঁটাবিদ্ধ হন।

অপরদিকে ইউপি চেয়ারম্যান স্বপন বলেন, ‘মাস্ক ও সাবান বিতরণ করা হয়েছে তিনদিন আগে। বিতরণের ঘটনায় কোনো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। তিনি আরো বলেন, ১০ বছর ধরেই তাজি মাতাব্বর ও ৪নং ওয়ার্ড সদস্য ইব্রাহিমের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। আমি যতটুকু জানি ইতিপূর্বে তাদের মধ্যে বিভিন্ন ঘটনায় বেশ কিছু মামলাও রয়েছে। করোনা প্রতিরোধে সামগ্রী বিতরণের ঘটনায় মারামারি হয়েছে এটা কেউ বলে থাকলে সেটি মিথ্যা তথ্য দিয়েছে।
আড়াইহাজার থানার ওসি তদন্ত আমীর হোসেন বলেন, এ ঘটনায় কোনো পক্ষই অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
0Shares

আলোকিত শীতলক্ষ্যা

পরিশ্রমকারীব্যক্তি কখনও ব্যর্থ হয়না এগিয়ে যাও সফল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.